‘২০ লক্ষ কোটির প্য়াকেজ বিগ জিরো, অশ্বডিম্ব’, তীব্র কটাক্ষ মমতার


''যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে ধ্বংস করে রাজ্য়ের অধিকার কেড়ে নিয়ে লকডাউনের নামে রাজ্য়গুলোকে লকআউট করার প্রবণতা? আমরা ধিক্কার জানাই''। 

কেন্দ্রের ২০ লক্ষ কোটির আর্থিক প্য়াকেজ আসলে ‘অশ্বডিম্ব’, এ ভাষাতেই মোদী সরকারকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের সাংবাদিক বৈঠকের পরই নবান্নে মমতা বলেন, ”গোটাটাই বিগ জিরো। কাল (মঙ্গলবার মোদী যা বলেছিলেন) যে কথা বলা হয়েছিল, দেশবাসীর আশা জেগেছিল। ভেবেছিলাম হয়তো রাজ্য়গুলো কিছু পাবে। কিছু নেই। অশ্ব ডিম্ব”।

এ প্রসঙ্গে বাংলার মুখ্য়মন্ত্রী আরও বলেন, ”এই দুর্দিনেও মানুষকে ধোঁকা, ভাঁওতা দিয়েছে। কর্মসংস্থানের কথা নেই। কিছু দেওয়া হয়নি। শূন্য়ের থালি নিয়ে কী কিছু হবে মানুষের! বিপদে পড়া মানুষকে কিছু দেওয়া হল না। কেন কৃষিঋণ মকুব করা হল না? করোনা মোকাবিলায় কিছুই দেওয়া হল না। কেন্দ্রের প্য়াকেজ আইওয়াশ”।



বাংলার মুখ্য়মন্ত্রী বলেন, ”যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে ধ্বংস করে রাজ্য়ের অধিকার কেড়ে নিয়ে লকডাউনের নামে রাজ্য়গুলোকে লকআউট করার প্রবণতা? আমরা ধিক্কার জানাই”।
এদিন মমতা আরও বলেন, ”প্রধানমন্ত্রী কাল একরকম বলেছেন, আর কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী আজ আরেক কথা বলেছেন।

জানি না, উনি প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য়কে মিসলিডিং করেছেন কিনা, সেটা আগামী দিন দেশ বুঝবে। অর্থমন্ত্রীর কথা শুনে মনে হচ্ছে, অর্থনীতি তলানিতে ঠেকবে। রাজ্য়গুলোকে অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দেশ কীভাবে দাঁড়াবে! রাজ্য়গুলো তো একেকটা স্তম্ভ। আমরা ৫২ হাজার কোটি টাকা বকেয়া বাবদ পাই, সেটা দিচ্ছে না”।

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে ৩ লক্ষ কোটির ঋণদানের প্রসঙ্গে মমতা বলেন, ”ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে বাংলায় ৯০ হাজার কোটি টাকা দিই আমরা বাংলায়”।

প্রসঙ্গত, করোনা মোকাবিলায় ২০ লক্ষ কোটির আর্থিক প্য়াকেজ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর্থিক প্য়াকেজ আদতে কী? কোন খাতে কীভাবে খরচ করা হবে, তার ব্য়াখ্য়া দিতে আজ সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন  ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য় ৩ লক্ষ কোটি টাকার ঋণদানের কথা ঘোষণা করেছেন। পাশাপাশি ইপিএফ, আয়কর রিটার্নেও একাধিক সুবিধার কথা জানিয়েছেন।
Source of the Article "www.bengali.indianexpress.com"